অতিরিক্ত সচিব হলেন বাঁশখালীর দীপক চক্রবর্ত্তী

108

মু. মিজান বিন তাহের, বাঁশখালী প্রতিনিধি >>>
স্থানীয় সরকার সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পদে যোগদান করেছেন চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালীর ছেলে দীপক চক্রবর্ত্তী।  গত ২৮ জুন (রবিবার) এই বিষয়ক একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে।  তিনি গত ২ জুলাই (বৃহস্পতিবার) অতিরিক্ত সচিব পদে স্থানীয় সরকার সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রালয়ের অতিরিক্ত সচিব পদে যোগদান করেন।
দীপক চক্রবর্ত্তী চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার পৌরসদরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের স্বর্গীয় হিমাংশু বিমল চক্রবর্ত্তী ও সংযুক্তা চক্রবর্ত্তীর ছেলে।  ৪ ভাই ১ বোনের মধ্যে সবার বড় দীপক চক্রবর্ত্তী।
১৯৭৮ সালে বাণীগ্রাম সাধনপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে চট্টগ্রাম কলেজে ও পরবর্তীতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগে ভর্তি হন।  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করেন।  বিএসসি (অনার্স) এবং প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে এমএসসি ডিগ্রী (১৭তম ব্যাচ) লাভ করেন।  কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য ১৯৮৭ সালে চ্যান্সেলর পদক লাভ করেন তিনি।  পরবর্তীতে এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে যোগদান করে সিলেটে কর্মজীবন শুরু করেন।  ১৯৮৯ সালে বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে (৮ম ব্যাচ) পটুয়াখালীতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদে যোগদান করেন।  পর্যায়ক্রমে কুমিল্লা (ম্যাজিস্ট্রেট), কক্সবাজার (ম্যাজিস্ট্রেট), রাঙামাটি (আরডিসি), শেরপুরের শ্রীবরদী (ইউএনও), বান্দরবান সদর (ইউএনও) ও নোয়াখালীতে এডিসি পদসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মময় জীবন অতিবাহিত করেন।  স্থানীয় সরকার, সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পদে যোগদানের পূর্বে তিনি স্থানীয় সরকার চট্টগ্রাম বিভাগের পরিচালক, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের সচিব, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তাসহ প্রশাসনের বিভিন্ন গুরুত্বর্পূণ পদে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।  কর্মজীবনে উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, অষ্ট্রেলিয়া, জাপানসহ বিভিন্ন দেশ সফর করেন।
ব্যক্তিগত জীবনে (এমবিবিএস অধ্যয়নরত) এক মেয়ের জনক দীপক চক্রবর্ত্তী।  তাঁর সহধর্মিনী ডা. রুমা ভট্টাচার্য (এমবিবিএস, বিসিএস (স্বাস্থ্য)) বর্তমানে তিনি চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে কর্মরত রয়েছেন।

ডিসি/এসআইকে/এমএমবিটি