সাংবাদিকদের পাওনা পরিশোধ না করে পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ রাখায় সিইউজে’র উদ্বেগ

95

নগর প্রতিবেদক, দৈনিক চট্টগ্রাম >>>
সংবাদকর্মীদের পবিত্র ঈদুল আযহার বোনাস না দিয়ে ঈদের নির্ধারিত ছুটির আগেই আকস্মিকভাবে চট্টগ্রামের পাঁচটি পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ রাখায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)।  বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) সকালে অনুষ্ঠিত সংগঠনের নির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় নেতৃবৃন্দ পত্রিকা কর্তৃপক্ষের এ হটকারী সিদ্ধান্তকে সাংবাদিক-কর্মচারীদের ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করা এবং করোনাকালে সার্বিক পরিস্থিতি ঘোলাটে করে সরকারকে বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস বলে মন্তব্য করেছেন।
সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, এসব পত্রিকা কর্তৃপক্ষ বিগত ঈদুল ফিতরের সময়ও সাংবাদিক-কর্মচারীদের পূর্ণ উৎসব বোনাস প্রদান করেননি।  কোনো কোনো পত্রিকা দীর্ঘদিন ধরে ইনক্রিমেন্ট, বেতন-ভাতা বকেয়া রেখেছে।  একইভাবে ঈদুল আযহার পূর্ণ বোনাস না দিয়ে সুকৌশলে ঈদের নির্ধারিত ছুটির আগেই বৃহস্পতিবার থেকে পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ রেখেছে।  ঈদ উৎসবের প্রাক্কালে যা অত্যন্ত অমানবিক ও বেদনাদায়ক।  কোনো ধরণের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই এভাবে পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ করে পাঠকদেরও সংবাদপ্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত করার পাশাপাশি এই করোনাকালে সার্বিক পরিস্থিতি ঘোলাটে করে সরকারকে বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।
নেতৃবৃন্দ পত্রিকা মালিকদের এ ধরণের ঘৃণ্য অপকৌশলের নিন্দা জানান এবং অবিলম্বে সাংবাদিক কর্মচারীদের ন্যায্য পাওনা পরিশোধ ও পত্রিকার প্রকাশনা অব্যাহত রাখার দাবি জানান।
সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি রতন কান্তি দেবাশীষ, সহ-সভাপতি অনিন্দ্য টিটো, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম ইফতেখারুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইফতেখার ফয়সল, নির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ মহরম হোসাইন, পূর্বকোণ ইউনিট প্রধান মিহরাজ রায়হান, প্রতিনিধি ইউনিট প্রধান সাইদুল ইসলাম, টিভি ইউনিট প্রধান মাসুদুল হক, পূর্বদেশ ইউনিট প্রধান জীবক বড়ুয়া, প্রতিনিধি ইউনিটের ডেপুটি ইউনিট প্রধান সরওয়ারুল আলম সোহেল, পূর্বদেশের ডেপুটি ইউনিট প্রধান সাইমন চুমুক প্রমুখ।

ডিসি/এসআইকে/আইএস