একাদশে ভর্তিতে লাগবে না প্রশংসাপত্র ও ট্রান্সক্রিপ্ট , বাড়ানো হলো ভর্তির সময়

40

রোকসানা রুনা, নগর প্রতিবেদক >>>
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সময় প্রশংসাপত্র ও এসএসসি পরীক্ষার ট্রান্সক্রিপ্ট জমা দেওয়ার নিয়ম থাকলেও এ বছর করোনা পরিস্থিতির কারণে তা শিথিল করা হয়েছে।  অর্থাৎ এ বছর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সময় প্রশংসাপত্র ও এসএসসি পরীক্ষার ট্রান্সক্রিপ্ট জমা দিতে হবে না।  করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সুবিধামত সময়ে এসব কাগজ কলেজে জমা দিতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।  পাশাপাশি ভর্তির সময় আরও দুইদিন বাড়িয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।  গত মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) এসব তথ্য জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটি।
কমিটির সভাপতি ও ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণের লক্ষ্যে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, প্রশংসাপত্রসহ কোনো প্রকার প্রামাণ্যপত্র জমা নেয়ার প্রয়োজন নেই।  একই কারণে পূর্ব নির্ধারিত ভর্তির সময়সীমা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে বৃদ্ধি করে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হলো।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির উন্নতি হলে সুবিধামত সময়ে সত্যায়িত একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, প্রশংসাপত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা নিতে বলা হয়েছে।  তবে কোটা পাওয়া শিক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই কোটাপ্রাপ্তি উপযুক্ত প্রমাণ সনদ দাখিল করে ভর্তি হতে হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।
বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. জাহেদুল হক এ ব্যাপারে বলেন, কোভিট পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সময় প্রশংসাপত্র ও ট্রান্সক্রিপ্ট জমা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটি।  পরবর্তীতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জমা দিতে বলা হয়েছে।  তবে কোটাপ্রাপ্তির ক্ষেত্রে প্রমাণপ্রত্র দেখাতে হবে।
তিনি আরও বলেন, এ বছর চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীনে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে মোট ১ লক্ষ ২ হাজার ৭’শ জন বিভিন্ন কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে।  তৃতীয় ধাপের ফলাফল ১০ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হবে।  তৃতীয় ধাপে মোট ১৭ হাজারের মত শিক্ষার্থী আবেদন করেছে।
বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপে পছন্দের কলেজে মনোনয়ন পেয়েছিল ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন শিক্ষার্থী।  ১৩ লাখ ৪২ হাজারের বেশি ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছিলেন।  দ্বিতীয় ধাপের আবেদন ও প্রথম ধাপের মাইগ্রেশনের পর আরও ২ লাখ ৪০ হাজার ৬৫৭ জন শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির মনোনয়ন পেয়েছে।
গত ৯ আগস্ট সকাল সাতটা থেকে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়।  ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম শেষ হবে।  জানা গেছে, চলতি বছর ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে মোট পরীক্ষার্থী এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেয় ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী।  এর মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

ডিসি/এসআইকে/আরআর