চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের অ্যাডভোকেসী কর্মশালা অনুষ্ঠিত

57

স্বাস্থ্য ডেস্ক, দৈনিক চট্টগ্রাম >>>
চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর বলেছেন, ডিম, ডাল, মাছ ও সবুজ শাক-সবজি সুষম খাবার হলেও খাদ্যাভাস সম্পর্কে আমরা তেমন সচেতন নই।  ফার্মের মুরগী খেতে মানুষ অভ্যস্ত হলেও এতে তেমন কোনো প্রোটিন নেই।  সুস্থ ও নিরাপদ জীবন গড়তে হলে সুষম খাবারের কোনো বিকল্প নেই।  স্কুল-কলেজে শিক্ষার্থীদেরকে এ ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।  নিরোগ থাকতে হলে সুষম খাবার সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করতে হবে।  পরিমিত খাবার খেতে হবে।  ব্যায়ামের পাশাপাশি নিয়মিত হাঁটার অভ্যাস গড়লে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে।  সাদা ভাত, লবণ ও চিনি কম খেলে হার্ট অ্যাটাক, কিডনি ও ডায়াবেটিসসহ অনেক ধরনের জঠিল রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।  যে সকল খাদ্যে ভৌত দূষক, ভারী ধাতু, টক্সিন, ক্ষতিকারক উপাদান থাকে সেসমস্ত খাবার পরিহার করতে হবে।  বিশুদ্ধ ও সুপেয় পানির ব্যবস্থাকরণসহ খাদ্যপোকরণগুলো পৃথক পৃথক ঢাকনাযুক্ত পাত্রে সংরক্ষণ করতে হবে।  রান্নায় বিশুদ্ধ ও নিরাপদ ভোজ্য তেল ব্যবহার করতে হবে।
আজ সোমবার (২৯ জুন) সকাল সাড়ে ১০ টায় স্বাস্থ্যকর ডায়েট, স্থুলত্ব, শারীরিক নিস্ক্রিয়তা অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণের জন্য অতিরিক্ত লবণ ও চিনিকে কেন্দ্র করে স্বাস্থ্যকর জীবনধারা সম্পর্কিত বিভাগীয় অ্যাডভোকেসি কর্মশালায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  চট্টগ্রাম নগরীর লয়েল রোডের সিনেমা প্যালেস সংলগ্ন বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বাস্থ্য শিক্ষা ব্যুরোর লাইফস্টাইল, হেলথ এডুকেশন অ্যান্ড প্রমোশন এই কর্মশালার আয়োজন করে।
বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয়ের সহকারী প্রধান (এমআইএস) সৈয়দ কামরুল আনোয়ারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চট্টগ্রামের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আসিফ খান।  অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আন্দরকিল্লা ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. অসীম কুমার নাথ (উপ-পরিচালক), বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা. মো. শফিকুল ইসলাম, ফৌজদারহাট বক্ষব্যাধি হাসপাতালের চিকিৎসা তত্ত্বাবধায়ক ডা. এস এম নুরুল করিম, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা. কামরুল আযাদ, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. মো. নুরুল হায়দার, মেডিকেল অফিসার (সিএস) ডা. ওয়াজেদ চৌধুরী অভি, জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. নাবীল চৌধুরী, চট্টগ্রাম নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ রাধু মুহুরী, স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মুহাম্মদ হোসাইন, সাংবাদিক রনজিত কুমার শীল, সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক মো. নজরুল ইসলাম, শিক্ষিকা শিখা রানী শীল, অজন্তা বড়–য়া, হামিদা বেগম, ফাতেমা বেগম, হোসনে আরা বেগম, নার্গিস আক্তার, শামীমা আক্তার, লুৎফা বেগম প্রমুখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির

ডিসি/এসআইকে/এসএজে