‘ফালতু কাজে’ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশে পাঠানো ‘মিডনাইট নির্বাচনে’ সহায়তার উপঢৌকন : রিজভী

26

দৈনিক চট্টগ্রাম ডেস্ক >>>
মোটা অংকের বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয় করে ‘ফালতু কাজে’ সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশে পাঠানো ‘মিডনাইট নির্বাচনে’ সহায়তার উপঢৌকন বলে মন্তব্য করেছেন রুহুল কবির রিজভী।  রাজধানীর নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব এ মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, খিচুড়ি রান্নার প্রশিক্ষণের জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশে পাঠানো হচ্ছে।  ইতোপূর্বে পুকুর খননের প্রশিক্ষণের জন্য, পাবদা মাছ চাষের প্রশিক্ষণ নিতেও তাদের বিদেশ পাঠানো হয়।  এসব অভিনব ও হাস্যকর তামাশা কেবলমাত্র শেখ হাসিনার আমলেই সম্ভব।  আবহমানকাল ধরেই ওইসব বিষয়ে সাধারণ মানুষ রপ্ত।  সেসব বিষয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ পাঠানোতে একটি প্রবাদ মনে পড়ে যায়- ‘সরকারি মাল দরিয়া মে ঢাল’।
রিজভী বলেন, ‘মোটা অংকের বৈদেশিক মুদ্রা খরচ করে ফালতু কাজে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশে পাঠানো মূলত মিডনাইট নির্বাচনে সহায়তা করার জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের উপঢৌকন দেওয়া।  যে সরকারের আমলে একটা বালিশের দাম সাড়ে ৭ হাজার টাকা এবং একজন রোগীকে আড়াল করতে সাড়ে ৩৭ লাখ টাকার পর্দা লাগে, সেই সরকার যে আগাগোড়াই লুটপাটের চেতনায় অনুপ্রাণিত তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।
‘প্রাইমারি স্কুল ফিডিং প্রোগ্রাম’ এর প্রকল্পের আওতায় স্কুল শিক্ষার্থীদের রান্না করা সবজি খিচুড়ি বা ডিম সরবরাহের কাজে এক হাজার সরকারি কর্মকর্তাকে বিদেশে প্রশিক্ষণের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর প্রস্তাব করেছে।  এই প্রকল্প কর্মসূচি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯ হাজার ২৮৩ কোটি টাকা।  বিশাল ব্যয়ের এই প্রকল্পের আওতায় আগামি পাঁচ বছর দেশের ৫০৯টি উপজেলায় ১ কোটি ৪৭ লাখ ৮০ হাজার শিক্ষার্থীদের তিন দিন গরম খিচুড়ি এবং তিন দিন পুষ্টিকর বিস্কুট সরবরাহ করা হবে।  ২০১০ সালে শুরু হওয়া ৫০ কোটি টাকার প্রকল্পটি শেষ হচ্ছে আগামি ডিসেম্বরে।
সংবাদ ব্রিফিংয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, একরামুল হক বিপ্লব, মশিউর রহমান বিপ্লব, অঙ্গসংগঠনের ডা. জাহিদুর রহমান জাহিদ, জাকির হোসেন রোকন, মোরশেদ আলম উপস্থিত ছিলেন।

ডিসি/এসআইকে/এমএসএ